কম্পিউটার ভাইরাস কি ? কম্পিউটার ভাইরাস আক্রান্ত হওয়ার লক্ষণ



আমরা সবাই ভাইরাস নামের সাথে সবাই পরিচিত । আমরা জানি যে ভাইরাস এমন একটি জিনিস যা দেখা যায় নাহ । কিন্তু অনেক ক্ষতিকর । অনেক ভাইরাস আছে যা প্রতিরোধ করা সম্ভব আবার অনেক ভাইরাস আছে যা প্রতিরোধ করা সম্ভব নাহ । এই সব ভাইরাসের মতো এমন অনেক ভাইরাস আছে যা কম্পিউটারের মধ্যে থাকে । যে ভাইরাস কম্পিউটারের  সাথে সম্পর্কিত সেই সব ভাইরাসকে এক কথায় কম্পিউটার ভাইরাস বলে । মানুষের দেহে যে রকম ভাইরাস আক্রান্ত করে ঠিক তেমনি কম্পিউটার ভাইরাস দ্বারা  আক্রান্ত হয় । 


কম্পিউটার ভাইরাস কি?


কম্পিউটার ভাইরাস এক ধরণের প্রোগ্রাম যা ইউজারের অনুমতি ছাড়া এক একা কপি হতে পারে এবং ক্ষতি সাধন করে। কম্পিউটার ভাইরাস গুল এক মেশিন থেকে অন্য মেশিনে ছড়িয়ে পড়তে পারে , কিছুটা মানুষের দেহের মতো , ভাইরাস যেমন এক মানুষের দেহ থেকে অন্য মানুষের দেহে ছড়িয়ে পড়তে পারে ঠিক তেমনি । কম্পিউটার ব্যবহারকারীর জন্য এক ভয়ানক অভিশাপ এর নাম হচ্ছে ভাইরাস । হ্যাকারা মূলত কম্পিউটার ভাইরাস ডেফলপ করার মাধ্যেমে তাদের অধিকাংশ হ্যাকিং কাজ গুলো করে থাকে । 


কম্পিউটার ভাইরাস আক্রান্ত হওয়ার লক্ষণ -


আমরা মোটামুটি বুজতে পারছি যে কম্পিউটার ভাইরাস আসলে কি জিনিস । এখন আমরা জানবো আসলে কম্পিউটার ভাইরাস আক্রান্ত হওয়ার লক্ষণ কি ।  আমরা আমদের কম্পিউটার বিভিন্ন এক্সটার্নাল ডিভাইস ব্যবহার করে থাকি যেমন - Pen-Drive , Hard-Drive,Card-Reader, Mobile ইত্যাদি , আবার আমাদের কম্পিউটারকে আমারা সারাদিন ইন্টারনেট সাথে কানেক্ট করে রাখি এবং বিভিন্ন ফাইল আদান প্রদান করে থাকি। আমরা চেক করে দেখি না কোনটা সেফ আর কোনটা নাহ।


এছাড়াও আমারা ইন্টারনেট এর মাধ্যেমে অনেক রক ওয়েবসাইটে ভিজিট করে থাকি এবং অনেক ফাইল ডাউনলোড করে ব্যবহার করে , আমরা চেক করি নাহ যে আসলে কোন ওয়েবসাইটি ভালো আর কোনটা খারাপ। আমরা কম্পিউটার ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার পর বুজতে পারি যে আসলে আমাদের কিছু ভুল ছিল।


এধরণের কিছু ভুল এর কারনে কম্পিউটার ভাইরাস দ্বারা আক্রান্ত হতে পারে । আবার অনেক সময় আমরা নিজেরাও বুজতে পারি নাহ কখন কম্পিউটার ভাইরাস প্রবেশ করেছে । এখন আমি কিছু বিষয়ে আলোচনা করছি যা দেখে আপনি সহজেওই  বুজতে পারবেন যে আপনার কম্পিউটার ভাইরাস দ্বারা আক্রান্ত হয়েছে কিনা।


কম্পিউটার ভাইরাস আক্রান্ত হওয়ার লক্ষণ গুলোর তালিকা -


কম্পিউটার স্লো কাজ করা - 


কম্পিউটার ভাইরাস আক্রমণ করলেই আপনার কম্পিউটারে স্পীড কমে যাবে।  আপনি বুজতে পারবেন আপনার কম্পিউটার আগের থেকে স্লো কাজ করতেছে। কম্পিউটার ভাইরাস গুলো আক্রমণ এর পর পরই কম্পিউটারের স্পীড কম করে ফেলে।  কারণ আমরা আগেই বলছি  কম্পিউটার ভাইরাস গুলো ব্যবহারকারী অনুমতি ছাড়াই একা একা কাজ করে। কম্পিউটারে ভাইরাস আক্রমণ করলে সেগুলো ভিতরে ভিতরে কাজ করতে থাকে তাই কম্পিউটারের স্পীড কম হয় বা কম্পিউটার স্লো কাজ করে। 


আপনি যদি বুজতে পারেন যে আপনার ককম্পিউটার আগের থেকে স্লো কাজ করছে তাহলে আপনি একটি ভালো মানের এন্টিভাইরাস দিয়ে পুরো কম্পিউটারকে স্ক্যান করর নিন। 


কম্পিউটার দেরি করে চালু হওয়া - 


আপনি যদি লক্ষ করেন যে আপনার কম্পিউটার আগের থেকে দেরি করে চালু হচ্ছে,  বা অনেক টাইম লাগছে কম্পিউটার ওপেন হতে তাহলে বুজতে হবে একটা সম্ভবনা আছে আপনার কম্পিউটার ভাইরাস আক্রমণ করেছে। 


আপনি যখন কম্পিউটার ওপেন করবেন তখন যদি ভাইরাস আক্রমণ করে থাকে তবে সেগুলো আগে সক্রিয় হবে এই জন্য মূল ইন্টারফেস আসতে আপনার দেরি হবে। কারণ তখন আপনার অপারেটিং সিস্টেম অনেক স্লো হয়ে যায়।  


কম্পিউটার নিজে নিজে রিস্টার্ট নেয়া - 


কম্পিউটার নিজে নিজে রিস্টার্ট হওয়ার খুব কম কারণ রয়েছে।  কম্পিউটার নিজে নিজে অনেক কারণেই রিস্টার্ট নিতে পারে,  কিন্তু বার বার রিস্টার্ট নেয়া এটা আসলে ভালো লক্ষণ নাহ। কম্পিউটারে ভাইরাস আক্রমণ এর জন্য আপনার কম্পিউটার বার বার রিস্টার্ট নিতে পারে। তাই আপনার উচিত হবে একটি প্রিমিয়াম এন্টিভাইরাস দ্বারা আপনার কম্পিউটারকে স্কান করে নেয়া। 


কম্পিউটারে সফটওয়্যার গুলো ঠিক মত কাজ না করা - 


আপনি যদি লক্ষ করেন যে হঠাৎ করে আপনার কম্পিউটারের অনেক সফটওয়্যার ঠিক মতো কাজ করছে নাহ তাহলে বুজতে হবে আপনার  কম্পিউটারে ভাইরাস আক্রমণ করেছে। কম্পিউটার ভাইরাস গুলো জন্য কম্পিউটারে সফটওয়্যার গুলো ওপেন হতে দেরি করে এবং ওপেন হওয়ার সাথে সাথে আবার বন্ধ হয়ে যায় আবার এমনও হয় যে কম্পিউটারের সফটওয়্যার গুলো জন্য পুরো কম্পিউটার হ্যাং হয়ে যায়। 


অজানা সফটওয়্যার ইন্সটল হওয়া - 


আপনি কম্পিউটারে কাজ করার সময় হঠাৎ আপনি লক্ষ করলেন যে আপনার কম্পিউটারে কিছু অজানা সফটওয়্যার ইন্সটল হয়ে আছে,  যেগুলো আপনি কখনো ইন্সটলই করেননি। 


কম্পিউটার ভাইরাস আক্রমণ এর জন্য ভাইসার গুলো নিজে নিজে আপনার কম্পিউটারে এইসব সফটওয়্যার গুলো ইন্সটল করতে থাকে। 


এরর মেসেজ অথবা সিস্টেম ক্র‍্যাশ - 


কম্পিউটার ভাইরাস গুলো আপনার কম্পিউটারে অনেক দিন থাকার ফলে মাঝে মাঝে আপনাকে এরর মেসেজ দেখায় এবং কোনো কারণ ছাড়াই বার বার কম্পিউটার রিস্টার্ট নেয়।  আবার মাঝে মাঝে আপনাকে সিস্টেম ক্রাশ এর নোটিশ দেয় তাহলে বুজতে হবে এর পিছনে একমাত্র দায়ী কম্পিউটার ভাইরাস।


পপ - আপ উইন্ডোজ চলে আশা - 


কম্পিউটারে কাজ করা অবস্থায় মাঝে মাঝেই পপ - আপ উইন্ডোজ সামনে চলে আশা এইটা রেগুলার বিষয় নয়।  আপনি যদি না জানেন এই পপ- আপ গুলো কেনো আসতাছে তাহলে বুজতে হবে এর পিছনে রয়েছে কম্পিউটার ভাইরাস।


প্রচুর এড চলে আশা - 


আমরা যখন নিজের কম্পিউটার থেকে অন্য কোনো Restricted ওয়েবসাইটে ভিজিট করি তখন কিছু ভাইরাস আমাদের কম্পিউটারে প্রবেশ করে।  


এর ফলে আপনার কম্পিউটারে কিছুক্ষণ পর পর এড দেখাতে থাকে।  যেটা খুবই বিরক্তিকর।  আপনি সেই এড এর জন্য কোনো কাজই ঠিক মতো করতে পারেন নাহ।  আর এইসকল  কম্পিউটার ভাইরাস  এর নাম হচ্ছে Adware Virus. 


এইসব কারণ ছাড়াও আরো কিছু কারণ থাকতে পারে।  আপনি যদি কখনো ফিল করেন যে আপনার কম্পিউটার আগের মতো আচরণ করছে নাহ তবে সাথে সাথে আপনাকে একশন নিতে হবে।  তা না হলে আপনি আপনার কম্পিউটারকে হারাতে পারেন।


কম্পিউটার ভাইরাস আক্রান্ত হলে যা করা উচিত -


আপনি হয়তে এতক্ষণে বুজতে পারছেন আপনার কম্পিউটার ভাইরাস দ্বারা আক্রান্ত হয়েছে কিনা । যদি কম্পিউটার ভাইরাস দ্বারা আক্রান্ত হয় তাহলে আপনাকে প্রথমেই একটি প্রিমিয়াম এন্টিভাইরাস সফটওয়্যার ব্যবহার করতে হবে ।


এন্টিভাইরাস সফটওয়্যার দ্বারা আপনার পুরো কম্পিউটারকে স্ক্যান করতে হবে । যদি এতেও ভালো ফল না প[ন তাহলে পুরো কম্পিউটারকে রিস্টোর করে ফেলুন । যদিও এতেও ফলাফল না পান তাহলে আপনি নতুন করে অপারেটিং সিস্টেম ইন্সটল করে ফেলুন । আশা করছি আপনি এইবার ভালো ফল পাবেন ।



পরিশেষে বলতে চাই -


কম্পিউটার ভাইরাস এর লক্ষণগুলোর মাধ্যেমে আপনি বুজতে পারবেন আসলে আপনার কম্পিউটার ভাইরাস দ্বারা আক্রান্ত কিনা ।


এবং আক্রান্ত হলে কি প্রাথমিক ভাবে কি করতে হবে তা সম্পর্কেও হয়ত আপনি এখন অবগত আছেন ।

আপনাকে সবসময় খেলায় রাখতে হবে যাতে আমরা অপ্রয়োজনীয় কোনো কিছু ব্যবহার না করি এবং নিজের শরীরের মতো নিজের কম্পিউটারের যত্ন নেই ।




Post a Comment

Previous Post Next Post